Logo

পাকিস্তানি মুসলিমদের নমাজ পড়তে দিচ্ছে না চিনা সংস্থা, প্রকাশ্যে ভাইরাল ভিডিও

কলকাতা নিউজ / ১০২ বার দেখা
আপডেট : মঙ্গলবার, ৩০ জুন, ২০২০

যে দেশ যতই বিরোধিতা করুক না কেন, চিন আর পাকিস্তান বরারই বন্ধ। সব ঋতুর বন্ধু বলা হয় এদের। তবে তার মধ্যে পাকিস্তানে থাকা চিনা সংস্থার এক অন্য রূপ সামনে এল। ইসলামাবাদে যে সকল চিনা সংস্থা রয়েছে, জানা গিয়েছে তারা কোনও পাকিস্তানি কর্মীকে নমাজের জন্য অনুমতি দেয় না। ইসলামি ধর্ম অনুসারে নমাজ একটি অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়াতে ভাইরাল হওয়া একটি ভিডিও থেকে দেখা গিয়েছে এক মুসলিম ধর্মগুরু অন্যান্য মুসলিমদের বলছেন, চিনা সংস্থাগুলোকে যেন বলে দেওয়া হয়ে যে এই দেশে অর্থাৎ পাকিস্তানে ব্যবসা করতে হলে এই দেশের স্থানীয় নিয়ম মেনে কাজ করতে হবে। অন্যথায় এই দেশে তাদের প্রয়োজন নেই। তিনি জানিয়েছেন নমাজ অস্বীকার করার উপায় নেই। কিন্তু কর্মীরা চাকরি চলে যাওয়ার ভয়ে মুখ খোলে না। কিন্তু এই মুহূর্তে পরিস্থিতি মানসম্মানে এসে দাঁড়িয়েছে বলে দাবি করেছেন ওই মুসলিম ধর্মগুরু।

চিন বরাবর পাকিস্তানের বন্ধু হিসেবে নিজেদের জানিয়ে এসেছে। কিন্তু এই মুহূর্তে চিনা সংস্থার দাপটে পাকিস্তানি সাধারণ মানুষদের অবস্থা যে যথেষ্ট সঙ্গিন তা বোঝা গিয়েছে। তবে চিনের মুসলিমদের বেজিং এর তরফ থেকে ক্রমেই যথেষ্ট অসুবিধার মুখোমুখি হতে হচ্ছে।

ক্রমেই বেজিং চিনা মুসলিমদের প্রতি আক্রমনাত্মক মনোভাব গ্রহন করছে। বিশেষত উইঘুর সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানুষদের উপরে ক্রমেই সমস্যা তৈরি করছে চিন। আর নমাজ সমস্যার কারণে ক্রমেই পাকিস্তানের মানুষজন ধীরে ধীরে নিজেদের মনোভাব প্রকাশ করছে। আর এই অবস্থায় বেজিং এর কাছে যে কোনও কাজের জন্য পাকিস্তান যথেষ্ট অসুবিধার কারণ হয়ে উঠছে।

মূলত সন্ত্রাসের বিরোধিতা করার জন্য ইতিমধ্যে উইঘুর মুসলিম ব্যক্তিদের জনসমক্ষে দাড়ি রাখা এবং মহিলাদের বোরখা পরার ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। পাশাপাশি একাধিক ক্ষেত্রে ক্রমেই চাপ বাড়িয়ে চলেছে চিন। আর এই পরিস্থিতি নিয়ে ক্রমেই বিরোধ শুরু হিয়েছে চিন এবং পাকিস্তানের মধ্যে।

সূত্র: কলকাতা নিউজ

 


এই বিভাগের আরও খবর

বিজ্ঞাপন

Theme Created By ThemesDealer.Com